পেটে গ্যাস কি ?

পেটে গ্যাস কি ?

মানুষের শরীরে পেটের বায়ু সৃষ্টি হয় পরিপাক বা হজমের নালীতে (গ্যাস্ট্রোইন্টেস্টিন্যাল ট্র্যাক্ট) জীবাণুগুলির দ্বারা খাবার ভাঙা অথবা অনিচ্ছাকৃতভাবে বাতাস গিলে ফেলার কারণে। এটা পেট-ফাঁপা বা ঢেঁকুর তোলার কারণ ঘটায়। অন্ত্রতে প্রায় <200 ml গ্যাস থাকে যেখানে প্রায় 600-700 ml গ্যাস রোজ শরীর থেকে বাতকর্ম রূপে বার হয়। পেট-ফাঁপা একটা স্বাভাবিক শারীরবৃত্তীয় ক্রিয়াকলাপ। পেটের বায়ুর পুনরাবৃত্তি এবং যে পরিমাণ বার হয় তা ব্যক্তি থেকে ব্যক্তিতে ভিন্ন ভিন্ন ধরণের হয়। এটা অস্বস্তিকর এবং লজ্জাকর হতে পারে। পেটের বায়ুতে হাইড্রোজেন, মিথেন এবং কার্বন ডাইঅক্সাইড-এর মত গ্যাস থাকে। দুর্গন্ধটা হাইড্রোজেন সালফাইড-এর গন্ধের মত একই রকম হয়।

পেটে গ্যাস এর উপসর্গ – Symptoms of Stomach Gas in Bengali

অত্যধিক আন্ত্রিক গ্যাসের উপসর্গগুলি নিম্নরূপঃ ঢেঁকুর তোলা (উদ্গার তোলা) প্রধানতঃ পরিপাক (হজম) নালীর উপরের অংশগুলিতে (পাকস্থলী এবং ক্ষুদ্র অন্ত্র [স্মল ইন্টেস্টিন] অত্যধিক বায়ু জমা (গেলা বা কথা বলার সময়) থেকে এটা ঘটে। পেট-ফাঁপা (বাতকর্ম করা) এটা প্রধানতঃ বৃহদন্ত্রে (লার্জ ইন্টেস্টিন), গ্যাস বা বায়ু জমার কারণে হয়। প্রধান কারণ হল ব্যাক্টেরিয়া দ্বারা গেঁজিয়ে ওঠা খাবার বা উদ্ভিজ্জ তন্তু (ফাইবার) অথবা মিশ্রিত কার্বোহাইড্রেট (শর্করা) ভাঙা। কোন কোন সময় খাবারের অসম্পূর্ণ হজমের কারণে গ্যাস সৃষ্টি হতে পারে। পেট ফুলে ওঠা (পেটভার) এটা আন্ত্রিক গ্যাসের খুব বেশি জমা হওয়া ছাড়াই পেটের একটা ভরভর্তি ভাবের অনুভূতি। লোকেরা অনেক সময়ই পৈটিক স্ফীতি (পেটভার) অনুভব করেন এবং সৃষ্ট গ্যাস ঢেঁকুর তোলা বা বাতকর্মের দ্বারা বার করতে সক্ষম হন না। (আরও পড়ুন – পেট ফুলে ওঠার জন্য ঘরোয়া টোটকা) ঢেঁকুর তোলা অথবা বাতকর্ম যেভাবে বারবার ঘটে সেটা দিনে 25 বারের বেশি চাগাড় দেয়। ঘুমের মধ্যে রাতের বেলায় এটা বাড়তে পারে।

পেটে গ্যাস হওয়ার কারণ – Causes of Stomach Gas in Bengali

কারণসমূহ আন্ত্রিক গ্যাসের (intestinal gas) প্রধান কারণ হল খাবার যা আমরা আমাদের কিছু অভ্যাসের সাথে খাই। কিছু খাবার অত্যধিক আন্ত্রিক গ্যাস সৃষ্টির দিকে নিয়ে যায়।

এগুলো হচ্ছে:

ডাল

বিন

বাঁধাকপি,

ফুলকপি,

ব্রোকোলি,

ব্রাসেল স্প্রাউটস-এর মত কপি জাতীয় শাকসবজি দুগ্ধজাত দ্রব্য ফ্রাক্টোজ-এর মত কার্বোহাইড্রেট অথবা সরবিটল-এর মত চিনির বিকল্পগুলো

সোডা এবং বিয়ার-এর মত বায়ুভরা পানীয়

মদ

আলু এবং ভাতের মত শ্বেতসারজাতীয় খাবার

চুইং গাম এবং মিষ্টির অত্যধিক ব্যবহার

ধূমপান

কখনও কখনও অত্যধিক আন্ত্রিক গ্যাস নীচের ব্যাধিগুলোর ক্ষেত্রে একটা উপসর্গ হিসাবে উপস্থিত হয়।

প্যানক্রিয়াটাইটিস (অটোইমিউন টাইপ) এটা প্যানক্রিয়াস-এর (অগ্ন্যাশয়) একটা প্রদাহ জিইআরডি (GERD) (গ্যাস্ট্রোএসোফেজিয়াল রিফ্লাক্স ডিজঅর্ডার) এমন একটা অবস্থা যেখানে পুনরাবৃত্তিমূলক বিপরীত প্রবাহ বা পাকস্থলীর খাবারগুলো খাদ্যনালীর মধ্যে উল্টোদিকে বেয়ে এসে অত্যধিক উদ্গার বা ঢেঁকুর তোলার কারণ ঘটায়।

ডায়াবেটিস দীর্ঘস্থায়ী উচ্চ রক্ত শর্করা বিলম্বিত মলত্যাগের কারণ সৃষ্টি করে (গ্যাস্ট্রোপেরিসিস হিসাবে পরিচিত) যা একটা পেটভরা থাকার অনুভূতি (স্ফীতি) আনে, পেটফাঁপা এবং গ্যাস উৎপাদন করে। আলসারেটিভ কোলাইটিস বা ক্রোন’জ ডিজিজ ক্রনিক (দীর্ঘস্থায়ী) প্রদাহমূলক ব্যাধি যা পরিপাক (হজম) নালীর স্ফীতি (ফোলা) সৃষ্টি করে এবং হজমে বাধা দেয় যা অন্যান্য উপসর্গ, যেমন পেট খারাপ, পেট ব্যথা, জ্বর, ওজন কমা এসবের সাথে আন্ত্রিক গ্যাসের অতি বেশি উৎপাদন ঘটায়। ইরিটেব্‌ল বাওয়েল সিনড্রোম কোষ্ঠকাঠিন্য (পায়খানা শক্ত হওয়া) বা পেট খারাপ, পেটফাঁপা, এবং খিঁচুনির মত উপসর্গগুলির দ্বারা একটা অবস্থা চিহ্নিত করে কোনরকম সনাক্তযোগ্য বা জানা কারণ ছাড়া। পেপটিক আলসার (পাকস্থলীর ক্ষত) একটা অবস্থা যেখানে পাকস্থলী বা অন্ত্রগুলিতে সুরক্ষামূলক পর্দার ক্ষতির কারণে খোলা ক্ষতের (আলসার) সৃষ্টি হয়। সিলিয়্যাক ডিজিজ একটা অটোইমিউন ব্যাধি যাতে গ্লুটেন বা গম-সংবলিত খাবারগুলি খাওয়া একটা প্রতিরোধ প্রতিক্রিয়ার কারণ হয় যা অন্ত্রের দেয়াল নষ্ট করতে শুরু করে।

Leave A Reply